মওদুদের দুর্নীতির মামলার কার্যক্রম স্থগিতের মেয়াদ বাড়লো

0
196
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা ঢাকা ১৮ অক্টোবর :
ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে দুদকের করা মামলার কার্যক্রমের স্থগিতের মেয়াদ বাড়ালো আপিল বিভাগ। এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির জন্য ১১ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আপিল বিভাগ।
বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি মো.মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন। ওইদিন পর্যন্ত মামলার কার্যক্রম স্থগিত থাকবে বলে জানিয়েছে দুদকের আইনজীবী। আদালতে অ্যাডভোকেট আহসানুল করীম ও ব্যারিস্টার মওদুদ তার নিজের পক্ষে শুনানি করেন।দুদকের পক্ষে ছিলেন খুরশীদ আলম খান। ৭ অক্টোবর ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে দুদকের করা মামলা বাতিলের আবেদন খারিজ করে বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদ ও বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় দেন।

হাইকোর্ট সূত্র জানায়, জরুরি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের ৯ সেপ্টম্বর দুদকের উপ সহকারী পরিচালক শরীফুল হক সিদ্দিকী গুলশান থানায় এ মামলা দায়ের করেন। এর আগে একই বছরের ৩ জুলাই সম্পদ ও আয়ের বিবরণী চেয়ে মওদুদকে চিঠি দিয়েছিলো দুদক। মামলায় অভিযোগ করা হয়, মওদুদ আহমদ চার কোটি ৪০ লাখ ৩৭ হাজার ৩৭৫ টাকার তথ্য গোপন ও সাত কোটি ৩৮ লাখ ৪৮ হাজার ২৮৭ টাকা জ্ঞাত আয় বর্হিভূতভাবে অর্জন করেছেন। ২০০৮ সালের ১৪ মে এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

এরপর ব্যারিস্টার মওদুদ হাইকোর্টে মামলা বাতিলের আবেদন জানালে আদালত চলতি বছরের ২৯ জানুয়ারি মামলার কার্যক্রমের ওপর ছয়মাসের স্থগিত আদেশ দেন এবং রুল জারি করেন। এ আদেশের স্থগিত চেয়ে দুদক আবেদন জানালে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি স্থগিতাদেশ দেননি। পরে দুদক লিভ টু আপিল করলে ৫ আগস্ট আপিল বিভাগ এ আবেদনের নিষ্পত্তি করে দেন এবং ৮ অক্টোবরের মধ্যে হাইকোর্টে মামলা বাতিলের আবেদন নিষ্পত্তি করতে বলেন।
পরে আপিল বিভাগের আদেশ অনুযায়ী হাইকোর্টে শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার পর ৭ অক্টোবর মামলা বাতিলের আবেদন খারিজ করে রায় দেওয়া হয়।
এরপর মওদুদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চেম্বার বিচারপতি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে বিষয়টি আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন।

নিউজরুম

শেয়ার করুন