সিংড়ায় ব্রি-৪৯ ধানে পোকার আক্রমন

0
106
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা, সিংড়া ১৪ অক্টোবর :
নাটোরের সিংড়ায় ব্রি-৪৯ ধানে পোকার আক্রমনে কৃষক দিশেহারা হয়ে পড়েছে। পোকা না ভাইরাস বুঝে উঠতে পারছেননা তারা। ওষধ ছিটিয়েও কোন ফল হচ্ছেনা। স্থানীয় কৃষি বিভাগ দস্তা ও জিপসাম সার প্রয়োগ করার পরামর্শ দিয়েই দায়িত্ব শেষ করেছে। তিগ্রস্থ কৃষকদের অভিযোগ স্থানীয় কৃষি বিভাগকে জানানো হলেও কেউ এলাকায় আসেননি। তবে স্থানীয় কৃষি বিভাগ কৃষকদের এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানান,তাদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় কৃষি বিভাগ সুত্রে জানাযায়, চলনবিল অধ্যুষিত সিংড়া উপজেলায় চলতি বর্ষা মৌসুমে ২২ হাজার ৬৪০ হেক্টর জমিতে রোপা আমন সহ ব্রি-৪৯ ও মিনিকেট ধান আবাদ করা হয়েছে। কিন্ত বাখুন্দা,সেরকুল,রাতাল,বিনগ্রাম সহ দুর্গম কয়েকটি গ্রামে ব্রি-৪৯ ধানে পোকা লেগে রং হলুদ হয়ে ধান গাছ মরে যাচ্ছে। পোকা দমনের ওষধ ছিটিয়েও তা রোধ করা যাচ্ছেনা। পোকা দেখাও যাচ্ছেনা এবং কি পোকায় খাচ্ছে কৃষকরা তা বলতে পারছেননা। তাই অনেকেই এটিকে ভাইরাজ ও ছত্রাকনাশক বলে মনে করছেন। তারা দুই তিনদিন পর পর আক্রান্ত জমিতে বিভিন্ন ধরনের ওষধ প্রয়োগ করছেন। কিন্তু এর পরও রং হলুদ হয়ে ধান গাছ মরে যাচ্ছে। অনেকে ভিটামিন ও ষ্টিল জাতীয় ওষধ প্রয়োগ করেও রোধ করতে পারছেননা। কৃষকদের অভিযোগ, পোকার আক্রমন শরু হওয়ার পর কৃষি বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করেও সাড়া মেলেনি। সিংড়া উপজেলার দুর্গম বাখুন্দা গ্রামের ধর্নাঢ্য কৃষক আব্দুল হাই জানান, এই পোকার আক্রমনে তার ১০ বিঘা জমির অর্ধেক ধান গাছ বিবর্ণ হয়ে নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি দু’তিন দিন পরপরই বিভিন্ন প্রকারের ওষধ ছিটিয়েছেন। আক্রান্ত ধান গাছে কোন পোকাও দেখা যাচ্ছেনা। একারনে ভিটামিন ও ষ্টিল জাতীয় ওষধও প্রয়োগ করেছেন। তাতেও কোন কাজ হচ্ছেনা। পোকা আক্রমনের কথা স্থানীয় কৃষি বিভাগকে জানানো হলেও আক্রান্ত এলাকায় কেউ পা মাড়ায়নি। একইভাবে গত মৌসমেও পোকার আক্রমনে তার ১৪০ বিঘা জমির ধান নষ্ট হয়ে যায়। সিংড়া উপজেলা কৃষি কর্মকতা সুব্রত কুমার সরকার কিছু কিছু এলাকায় ধান গাছের রং বিবর্ণ হওয়ার কথা স্বীকার করে জানান,এটি পোকার আক্রমনে হয়নি। জমিতে সালফার ও দস্তার অভাবে এমনটি হয়েছে। আক্রান্ত জমিতে দস্তা ও জিপসাম সার উপরি প্রয়োগ করতে কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।
নিউজ প্রতিবেদক, সম্পাদনা আলীরাজ/ আরিফ, নিউজরুম

শেয়ার করুন