ডেসটিনির প্রেসিডেন্ট ‍হারুনের জামিন খারিজ

0
180
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা, ঢাকা ১৪ অক্টোবর :
যথাযথ আইন অনুসরণ না করে আবেদন করায় জামিন পাননি ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লে. জে. (অব.) হারুন অর রশিদ। আইন অনুসারে আবেদন করার জন্য তাকে মৌখিকভাবে বলেছেন আদালত। রোববার বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি ফরিদ আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।
শুনানি শেষে সেনাপ্রধানের আইনজীবী আবদুল মতিন খসরু জানান, “রোববার বিকেলের মধ্যেই আইন অনুসরণ করে আপিল আবেদন দাখিল করা হবে।” আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্তি অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা, দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাড খুরশীদ আলম খান। আইনজীবী মুরাদ রেজা বাংলানিউজকে জানান, সাবেক সেনাপ্রধান হারুন অর রশিদের জামিন আবেদন আইন অনুযায়ী সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয়নি। এজন্য তার আবেদনটি খারিজ হয়ে গেছে। এখন তাদের অনুযায়ী আবার আপিল করতে হবে।
গত ১১ অক্টোবর ডেসটিনি গ্রুপের প্রেসিডেন্ট সাবেক সেনাপ্রধান লে. জেনারেল (অব.) হারুন অর রশিদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীন ও চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। সেদিনই তারা ঢাকার মহানগর দায়রা জজ মো. জহুরুল হকের আদালতে পৃথকভাবে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। গত ২৭ সেপ্টেম্বর হারুন অর রশিদ, রফিকুল আমীন, মোহাম্মদ হোসাইনসহ ডেসটিনির শীর্ষ ২১ কর্মকর্তাকে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের দেওয়া জামিন বাতিল করেছিলেন একই আদালত।
উল্লেখ্য, দুদকের উপ-পরিচালক মো. মোজাহার আলী সরদার ও সহকারী পরিচালক মো. তৌফিকুল ইসলাম গত ৩১ জুলাই মামলা দুটি দায়ের করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেড কর্তৃপক্ষ ডেসটিনি ট্রি প্ল্যানটেশন ও ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির মাধ্যমে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। কিন্তু বর্তমানে তাদের পৃথক দুটি অ্যাকাউন্টে ৫৬ লাখ ও ৪ কোটি ৮৭ লাখ টাকা আছে। বাকি তিন হাজার ২৮৫ কোটি টাকা তারা মানি লন্ডারিংয়ের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেছেন।

নিউজরুম

শেয়ার করুন