ঈদের নাটক ‘মনের আকাশে’

0
164
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা বিনোদন ডেস্ক :
এটিএন বাংলায় ঈদের চতুর্থ দিন রাত ৭টা ৪৫ মিনিটে প্রচার হবে নাটক ‘মনের আকাশে’। নাটকটি রচনা করেছেন ফারিয়া হোসেন। পরিচালনায় শেখ রুনা। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন অপূর্ব, মিমো, তানভীর তনু, ডলি জহুর প্রমুখ। আশরাফ সাহেব এবং তার স্ত্রী মিরানার সুন্দর সংসার, খুব আদরের ছেলে আদনান এবং তাদের ভাইয়ের ছেলে পলাশকে নিয়ে তাদের জীবন। আদনান খুব অস্থির, আর পলাশ ঠিক তার উল্টো। দুজন কাজিন হলেও দুজনের সম্পর্ক বন্ধুত্বের। দুজন মিলেই আশরাফ সাহেবের ব্যবসার কাজও দেখে।
আশরাফ সাহেবের বন্ধুর মেয়ে মিমো বেড়াতে আসে নিউইয়র্ক থেকে। ৩ বছর আগেও একবার এসেছিল। তখন ওর চমৎকার বন্ধুত্ব হয়েছিল আদনান এবং পলাশের সঙ্গে। কিন্তু এবার এসে মিমো বুঝতে পারে পলাশ ওকে কিছুটা এড়িয়ে চলছে। এ নিয়ে খুব বেশী মাথাও ঘামায় না সে। ওর ভাললাগা আদনানের প্রতি। কারণ গত তিনবছর ধরে আদনানের সঙ্গ চিঠি, ই-মেইল, টেক্স এর মাধ্যমে যোগাযোগ হয়েছে। ওদের দুজনের মনের অদ্ভুত মিল। ওদের চাওয়া পাওয়া সবই যেন এক। আদনানের সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যই মিমো দেশে ফিরে আসে। কিন্তু আদনানকে সে অন্যরকম পায়, চিঠি, ইমেইলের আদনান এবং বাস্তবের আদনান যেন অন্য মানুষ। পলাশের সঙ্গে কথা বললে সে ব্যাপারটি এড়িয়ে যায়। মিমো একদিন পলাশের ঘরে আবিস্কার করে ওর লেখা চিঠি, ইমেইল এর কপি, প্রচন্ড অবাক হয়ে যায়। পলাশের মুখোমুখি হয়। পলাশ ওকে জানায় আসল ঘটনা। তিন বছর আগে যখন মিমো এখানে এসেছিল, তখন আদনানের সাথে ওর বন্ধুত্ব হয়। আদনান তার স্বভাব সুলভভাবে মিমোর জন্য পাগল হয়ে ওঠে।
ওরা চিঠিতে, ইমেইল এ যোগাযোগ রাখার ডিশিসন নেয়। রহস্য প্রিয় মিমো চায় ওদের সম্পর্কে কিছুটা আড়াল থাকুক, রহস্য থাকুক, তাই ওরা ফোনে কথা না বলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। মিমো ফিরে যাওয়ার পর চিঠি লেখে ইমেইল করে, আদনান একবার দু-বার উত্তর দেয়, কিন্তু তারপর ও আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। মিমো চিঠি লিখতে থাকে। চিঠিগুলো পলাশ পড়ে এবং কোন এক দূর্বল মুহুর্তে মিমোকে চিঠি লেখা শুরু করে। লেখার মাধ্যমে দুজনের মধ্যে অদ্ভুত একটা সম্পর্ক দাঁড়ায়। পলাশ কখনোই নিজের নামে চিঠিগুলো লেখেনি। সবই ছিল আদনানের নামে। এ কথা জানার পর মিমো অদ্ভত এক দ্বিধায় পড়ে। পলাশের কথা, ওর চিন্তা ও ভাবনা যখন ওর মনে, তখন ওর চোখের সামনে আদনানের চেহারা। পলাশ মিমোকে জানায় তার প্রতি লেখা কথাগুলো আদনানের নামে ছিল, কিন্তু কথাগুলো পলাশের নিজের। ওর ভাললাগা, চাওয়া সব ওর নিজস্ব। একটি নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে এই তিনজনের সম্পর্কের জটিলতার নিরসন হয়।
নিউজরুম ১৪ অক্টোবর,২০১২।

শেয়ার করুন