রামুর তদন্ত প্রতিবেদন খালেদা জিয়ার হাতে

0
129
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা ঢাকা, ১২ অক্টোবর :
রামুতে বৌদ্ধ বসতি ও বৌদ্ধবিহারে সহিংসতার ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন দলীয় চেয়ারপারর্সন খালেদা জিয়ার হাতে তুলে দিয়েছেন বিএনপির তদন্ত দল। বৃহস্পতিবার রাতে এ তদন্ত প্রতিবেদন দলের চেয়ারপারর্সন খালেদা জিয়ার হাতে তুলে দেন নয় সদস্যের তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।
খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এপ্রতিবেদন হমত্মামত্মর করা হয়। এসময় অন্য তদন্ত কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তদন্ত কমিটির এক সদস্য জানান, ‘‘আমরা আক্রামত্ম এলাকাগুলোর ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ ও স্থানীয়দের বক্তব্য নিয়েছি। তাতে বোঝা গেছে, হামলার সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও স্থানীয় প্রশাসন সম্পূর্ণ নিস্ক্রিয় ছিল। সরকারি দলের মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এর সঙ্গে জড়িত তো ছিলেনই, উচ পর্যায়ের নেতাদেরও এর পেছনে ইঙ্গিত ছিল।’’ সূত্র আরো জানায়, বিএনপির তদন্ত কমিটির ওই তদন্ত প্রতিবেদনের বড় একটি অংশে এ ঘটনার জন্য সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে স্থানীয় নেতাদের দায়ী করা হয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পরিকল্পিত এ ঘটনার সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগ সরাসরি জড়িত। উলেস্নখ্য, গত ২৯ সেপেম্বর কক্সবাজারের রামু, উখিয়া ও টেকনাফের বৌদ্ধপল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের ঘটনায় গত ১ অক্টোবর নয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন বিএনপি চেয়ারপারর্সন বেগম খালেদা জিয়া। কমিটি গত শুক্র ও শনিবার রামুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন। সোমবার রাতে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ সদস্যরা চেয়ারপারর্সনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
এ সময় তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য খালেদা কাছে বর্ণনা করেন তারা। এ সময় হাতে লেখা সাত পৃষ্ঠার খসড়া প্রতিবেদনটি খালেদা জিয়াকে পড়ে শোনান ব্যারিস্টার মওদুদ। এ তদন্ত প্রতিবেদন দ্রুত চূড়ামত্ম করে জনসম্মুখে প্রকাশে কাজ করতে মওদুদকে নির্দেশ দেন খালেদা জিয়া। তারই আলোকে চীন সফরে যাওয়ার আগেই খালেদা জিয়ার হাতে তদন্ত প্রতিবেদন তুলে দেন তদমত্ম কমিটি। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদকে আহবায়ক করে গঠিত তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুলস্নাহ আল নোমান, চেয়ারপারর্সনের উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, যুগ্ন-মহাসচিব সালাউদ্দিন আহম্মেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আকবর খোন্দকার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী ও ঢাকা বিশববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া। এদিকে শুক্রবার সংবাদ সম্মেলন করে রামুর ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিএনপি।
নিউজরুম

শেয়ার করুন