আইন করে মাদকের ব্যবহার কমানো সম্ভব নয়

0
146
Print Friendly, PDF & Email

-নওগাঁয় আব্দুল জলিল এমপি
মোফাজ্জল হোসেন, নওগাঁ প্রতিবেদক:
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য আব্দুল জলিল এমপি বলেছেন, মাদকদ্রব্যের আগ্রাসন দেশের যুবসমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। যে কোন মূল্যে যুবসমাজকে মাদকের আগ্রাসন থেকে রক্ষা করতে না পারলে আমাদের স্বাধীনতার মুল্যবোধ লুন্ঠিত হবে। তবে কেবল আইন করে দেশের মাদকের অপব্যবহার কমানো সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে মানুষকে সচেতন করার কোন বিকল্প নাই।
তিনি গত মঙ্গলবার রাতে তার বাসভবনে আয়োজিত তামাক নিয়ন্ত্রন আইন সংশোধন শীর্ষক স্থানীয় সংসদ সদস্যদের সাথে এক এ্যাডভোকেসী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। বেসরকারী সংগঠন এ্যাসোসিয়েশন ফর কমুউনিটি ডেভলপমেন্ট (এসিডি) ও আশ্রয় সমাজ উন্নয়ন সংস্থা যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে। আশ্রয় সমাজ উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক আলো দাসের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই এ্যাডভোকেসী সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার এবং সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকার। এ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এসিডির প্রজেক্ট কো-অডিনেটর এহসানুল আমিন ইমন, প্রোগ্রাম অফিসার তোহিদুল আলম, হোসনে আরা পারভীন ফারজানা ও এ্যাডভোকেসী অফিসার পারভেজ আহমেদ।
সভায় তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহারে বাংলাদেশ পৃথিবীতে অন্যতম এবং বর্তমানে এইচআইভি এইডস্ এর চেয়েও ক্ষতিকারক হিসেবে তামাককে বিবেচনা করে বলা হয়েছে তামাক বলতে বিড়ি বা সিগারেটকে না উলে¬খ করে সাদাপাতা, জর্দা, গুলতামাক পণ্যের মধ্যে পরে যা সমান পরিমানে ক্ষতিকারক। আমাদের দেশে তামাকের উপর বিভিন্ন আইন প্রচলিত থাকলেও তার তেমন কোন প্রয়োগ নেই। যার কারনে আইনে পাবলিক পে¬স ও পাবলিক পরিবহনে ধুমপান নিষেধ থাকলেও প্রতিনিয়ত তা লঙ্ঘিত হচ্ছে। সভায় জানানো হয় একজন ধুমপায়ী তামাক সেবনে যে পরিমান ক্ষতির সম্মুক্ষীন হন একজন অধুমপায়ী তার সংস্পর্শে আসলে ঠিক একই পরিমান ক্ষতির সম্মূক্ষীন হন।
এর আগে দুপুরে নওগাঁ ব্রীজের মুখে আশ্রয় সমাজ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে তামাক বিরোধী এক মানবন্ধন কর্মসূচী পালন করে। এতে বিভিন্ন নারী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
প্রতিবেদক মোফাজ্জল হোসেন সম্পাদনা আলীরাজ/ আরিফ

শেয়ার করুন