ডিমের বাজার ধরা ছোয়ার বাইরে

0
333
Print Friendly, PDF & Email

রূপসীবাংলা নিউজ ঢাকা, ০৫অক্টোবর:
ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে ডিমের বাজার৷ প্রতিনিয়ত দাম বাড়ায় ডিম কেনার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছেন ক্রেতার৷ পাইকারী বাজার থেকে খুচরা বাজার সবখানেই কেনাবেচা কম৷ খুচরা বিক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে ডিমের দাম বাড়াচ্ছে পাইকার ও আড়তদারদের সক্রিয় সিন্ডিকেট৷ রাজধানীর শানত্মিননগর, তেজগাঁও, কাওরনবাজার ঘুরে দেখা যায়, পাইকারী দরে শত প্রতি ডিমের দাম বেড়েছে তিন টাকা৷
এতে ছয়’শ টাকার প্রতি এক’শ ডিমের দাম ঠেকেছে নয়’শ টাকায়৷ যা গতমাসে প্রতি এক’শ ডিমের দাম ছিল আট’শ টাকা৷ অপরদিকে একই ডিম খুচরা বাজারে প্রতি এক’শ বিক্রি হচ্ছে এক হাজার টাকায় ৷ এতে প্রতি হালি ডিমের দাম হয়েছে ৪০ টাকা৷ পাশাপাশি কেজি প্রতি ৩০ টাকা বেড়ে ফার্মের মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকায়৷ পাকিসত্মানি কক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৭০ টাকায়৷ যা গত সপ্তাহের তুলনায় ১০ টাকা কম৷ গরু বিক্রি হচ্ছে ২৮০ এবং খাসি ৪৩০ টাকায়৷ দেশী মুরগি আকার ভেদে দুই’শ হতে চার’শ টাকায়৷ শুক্রবার রাজধানীর পাইকারী ও খুচরা বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায়, টমেটো কেজি প্রতি ৭০-৮০ টাকা, ফুল কপি পিচ প্রতি ৪০ টাকা, বাধাকপি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, লাউ আকার বেধে ২৫ থেকে ৪০টাকায়, চাল কুমড়া আকার বেধে ২০ থেকে ২৫ টাকায়, মুলা ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, পটল ২০ টাকায়, ঢেঁড়শ ২৬ টাকায়, কাকরল ২৫ টাকায়, করলা ২৫, কচুমূখী ২০ টাকায়, পেঁপে ১৫ থেকে ২০ টাকায়, চিচিংগা ২০ থেকে ২৪ টাকায়, ঝিঙ্গা ২০ থেকে ২৫, সবজী কলার হালি ১৫ থেকে ২০ টাকায়, কুমড়া আকার ভেদে ৩০ থেকে ৮০ টাকায়, সাজনা ৫০ টাকায় বিক্রি করছে খুচরা বিক্রেতারা৷
পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে জাত অনুসারে ২৫-৩৫ টাকায়, রসুন দেশী ৫০ টাকায় ভারতি ৯০ টাকায়, আদা দেশী ৬০ ভারতি ৫০, আলু ২৪ থেকে ২৬ টাকায়, মসুর ডাল ১১২ টাকায়, খেসরী ১০৫ টাকায়, প্যাকেট জাত লবন কোম্পানি অনুসারে কেজি প্রতি ২৫ থেকে ৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে৷ ধনে পাতা কেজিতে ১৫০ টাকা, বেবিকন প্রতি পিছ ২০-৩০, পেপসিকন ২৫-৩০ টাকায়, বিলেতি ধনে পাতা এক’শ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে৷ এছাড়া বিভিন্ন ধরনের শাকের আঁটি ৫ থেকে ২০ টাকা বিক্রি হচ্ছে৷ মশলা বাজার গত সপ্তাহের মত স্থিতিশীল রয়েছে৷ বিভিন্ন কোম্পানির ৫ লিটার ভোজ্য তেলের দাম ৬৫৪ টাকা ও পাম তেলের দাম ১১০ টাকায়, শুকনো মরিচ ১০০ টাকা, জিরা ২০০ টাকা, হলুদ ১২০ টাকা, চা পাতা ২২০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে৷ অপরদিকে, খেসারী ১১০ টাকা, মুগ ডাল ১২০ মাসকলাই ১২০ টাকা, পোলাওয়ের চাল ৭৫ টাকা থেকে ১০০ টাকা৷ প্যাকেট আটা ২ কেজি ৬৫ খোলা আটা ৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে৷ ব্জ�্বগাটা ধনে ৮০ টাকায়, গোটা হলুদ ১২০ টাকায় টাকায় বিক্রি হচ্ছে৷ চালের বাজারও আগের মত স্থিতিশীল রয়েছে৷
নিউজরুম

শেয়ার করুন