গাজীপুর-৪ উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নেবে না

0
165
Print Friendly, PDF & Email

প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সাক্ষাৎকার নেওয়ার ঘণ্টাখানের মধ্যে গাজীপুর-৪ আসনে উপনির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এইচ এম এরশাদ নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি। 

দলের মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার সোমবার বিকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তারা ওই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না। 

“সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে গাজীপুর-৪ উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টি অংশ নেবে না। এত অল্প সময়ের জন্য উপনির্বাচনে অংশ নিয়ে সফলতা না এলে তা জাতীয় নির্বাচনে প্রভাব ফেলতে পারে এ বিষয়টি মাথায় রেখেই নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে,” বলেন তিনি। 

এর আগে দুপুরে এরশাদ গাজীপুর-৪ আসনে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেন। এতে রুহুল আমীন হাওলাদারসহ শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা ছিলেন। 

এরপর দুপুর ২টায় এরশাদের সভাপতিত্বে সংসদীয় বোর্ডের সভা হয়। সেখানে ১১ সদস্যের মধ্যে নয়জন উপস্থিত ছিলেন। সেখানে নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। 

আওয়ামী লীগের তানজিম আহমদ সোহেল তাজের পদত্যাগের কারণে গাজীপুর-৪ আসনে উপনির্বাচন হচ্ছে। আওয়ামী লীগ সোহেল তাজের বোন সিমিন হোসেন রিমিকে এই আসনে প্রার্থী মনোনীত করেছে। তারা দুজনই দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদের সন্তান। 

রুহুল আমিন বলেন, “আসনটি তাজউদ্দিন আহমদের, সেখানে সোহেল তাজ নির্বাচন করেছিলেন। সে আসনে এখন তার বোন আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এমতাবস্থায় মহাজোটের শরিক হয়ে আমরা ওই আসনে প্রার্থী দিচ্ছি না।” 

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটে জাতীয় পার্টি থাকলেও আগামী নির্বাচন এককভাবে করার ঘোষণা রয়েছে এরশাদের। এককভাবে ক্ষমতায় যাওয়ার আশাও রয়েছে সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদের। 

রুহুল আমিন বলেন, “উপনির্বাচন সরকার পরিবর্তনে কোনো ভূমিকা রাখে না।” 

এর আগে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক সচিব সুনীল শুভ রায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, সোমবার দুপুর ২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত উপনির্বাচনে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেন এরশাদ।” 

ওই আসনে লাঙল প্রতীকে প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান, জিয়াউর রহমান, সামসুদ্দিন খান ও মোয়াজ্জেম হোসেন।

শেয়ার করুন