রংপুর সুগার মিল এলাকায় আখের বাম্পার ফলন

0
49
Print Friendly, PDF & Email

গাইবান্ধার একমাত্র ভারী শিল্প প্রতিষ্ঠান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জের রংপুর সুগার মিলের বিভিন্ন সাবজোন এলাকায় চলতি আখ রোপন মৌসুমে রোপনকৃত আখের বাম্পার ফলন হয়েছে।

সুগার মিল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন জোন এলাকার আখ চাষিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের আখ চাষে উদ্ধুদ্ধ করায় এবং চাষিদের নিয়ে ঘন ঘন আলোচনা করার কারণে চাষিরা আখ চাষে মনযোগী হয়েছে।

আগামী মাড়াই মৌসুমে রংপুর সুগার মিল প্রায় ৩ মাস চালানো সম্ভব হবে বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, রংপুর সুগার মিলের মিলগেট (এ), মিলগেট (বি), মোকামতলা, গোবিন্দগঞ্জ, সাহেবগঞ্জ, পলাশবাড়ী, পীরগঞ্জ ও নলডাঙ্গা এই ৮ টি সাবজোন এলাকার প্রায় সাড়ে ৫ হাজার আখ চাষি চলতি মৌসুমে ৭ হাজার ৪০ একর জমিতে আখ চাষ করেছে।

গতকাল সকালে উল্লেখিত এলাকার অনেক আখ চাষির সাথে কথা বললে তারা জানায়, সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল খালেক, মহাব্যবস্থাপক (কৃষি) অলিক সোম, ডিজিএম খন্দকার আবুল হাসেম সহ বিভিন্ন কর্মকর্তারা তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আলোচনার মাধ্যমে আখ চাষ একটি লাভ জনক ফসল বিষয়টি বুঝিয়ে দেয়ায় তারা আখ চাষে বেশি আগ্রহী হয়েছে।

আগামীতে তারা আরও বেশি করে আখের আবাদ করবে বলে জানিয়েছে।

গত কিছুদিন থেকে সুগার মিলের বিভিন্ন জোন এলাকায় আখে মাজরা পোকার আক্রমন দেখা দেওয়ায় সুগার মিল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন ইউনিটে গিয়ে আখ চাষিদের সাথে নিয়ে পোকা দমনের বিভিন্ন কৌশল শেখানো সহ পোকা দমন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে সোমবার বেলা ১ টায় সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল খালেকের সাথে কথা বললে তিনি ”বিডি প্রেস ডট নেট’ কে জানান, অনান্য ফসলে রোগ বালাই ও পোকা আক্রমন করলে চাষিরা তা দমনে যেমন আগ্রহী হয়ে উঠে আখ চাষিরা আখের বেলায় তেমন আগ্রহ দেখায় না।

তবে আখ চাষে অনান্য বছরের চাইতে চাষিরা এবার বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেছে। গত বছরের চাইতে রংপুর সুগার মিলের বিভিন্ন জোন এলাকায় এবার প্রায় দেড় হাজার একর বেশি আখ চাষ হয়েছে।

ইতিপূর্বে তাদের ভাল ভাবে উৎসাহ না দেওয়ায় তারা আখ চাষে আগ্রহ হারিয়েছিল।

আগামী মাড়াই মৌসুমের জন্য সুগার মিলের বিভিন্ন জোন ও সাব জোন যে সব জমিতে আখের আবাদ করা হয়েছে তাতে বাম্পার ফলন লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এসব জমি থেকে প্রায় ১ লক্ষ ২৫ হাজার ৭শ মে.টন আখ উৎপন্ন হবে। এর মধ্য থেকে প্রায় ৭০ হাজার মে.টন আখ মাড়াই করে আগামী ২০১৩-১৪ মাড়াই মৌসুমে সুগার মিলটি প্রায় ৮৫ থেকে ৯০ দিন চালানো সম্ভব হবে।

শেয়ার করুন